Loading... bongo tv Live

দুপুর

রিয়ালে যোগ দিতে তাঁর ১০ মিনিট লেগেছিল

রিয়াল মাদ্রিদের প্রতি রবার্তো কার্লোসের ভালোবাসা পুরোনো গল্প-গাথার অংশ। আজ তিনি যা, তার পেছনে রিয়ালে ১১ বছরের ক্যারিয়ারের অবদান কম না। এই ক্যারিয়ারই তাঁকে সর্বকালের অন্যতম সেরা লেফট ব্যাক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে অনেক বড় ভূমিকা রেখেছে। তবে রিয়ালে যোগ দেওয়ার আগে একটা ইতিহাস ছিল সাবেক ব্রাজিলিয়ানের।

বিশ্বকাপজয়ী কার্লোস রিয়ালে যোগ দেওয়ার আগে ছিলেন ইন্টার মিলানে। মাত্র এক মৌসুম (১৯৯৫-৯৬) পরই ইতালিয়ান ক্লাবটি ছেড়ে মাদ্রিদে পাড়ি জমান তিনি। কেন ইন্টার ছেড়েছিলেন কার্লোস? অভিষেক ম্যাচেই ৩০ গজ দূর থেকে ফ্রি কিকে করা গোলে জিতিয়েছিলেন ইন্টারকে। ইতালিতে সুখীই থাকার কথা ছিল সাবেক এই লেফট ব্যাককে। তা হলো না কেন?

ফিফার ইনস্টাগ্রামে সরাসরি আলাপচারিতায় এ নিয়ে কথা বলেছেন সবচেয়ে আক্রমণাত্মক মানসিকতার লেফট ব্যাক হিসেবে খ্যাত কার্লোস, ‘ইন্টারে ওরা আমাকে ওপরে খেলাত, এমনকি স্ট্রাইকার হিসেবে। প্রথম সাত ম্যাচে সাত গোল করা বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। এ কারণে ওরা সামনে খেলাত আর এতে আমার সমস্যারও শুরু হয়।’

ইন্টারে ৩০ ম্যাচ খেলা কার্লোসের ব্যাখ্যা, ‘সভাপতিকে জানাই আমি ওখানে খেলতে পারব না। তখন সামনে কোপা আমেরিকা ছিল, উইংয়ে খেলতে হবে আমাকে। মজার ব্যাপার হলো, একদিন লরেঞ্জো সাঞ্জের (রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক সভাপতি) সঙ্গে বৈঠক হলো, মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে (ইন্টারের সঙ্গে) সম্পর্কচ্ছেদ করে সই করি রিয়ালে।’

১৯৯৬ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত রিয়ালে ছিলেন কার্লোস। দীর্ঘদিনের এ ক্যারিয়ারে তিনবার চ্যাম্পিয়নস লিগ ও চারবার লা লিগা জিতেছেন তিনি। সবচেয়ে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে সাবেক রিয়াল সতীর্থ লুই ফিগোকে বেছে নিলেন ৪৭ বছর বয়সী সাবেক এ ফুটবলার, ‘হোয়াকুইন, এতো…ফিগো। ফিগো দুর্দান্ত। আমার মুখোমুখি হওয়ার সবচেয়ে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বী।’

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ